Latest Event Updates

শবে বরাত উপলক্ষে প্রচলিত কতিপয় বিদআতের উদাহরণ: আসুন, বিদআত থেকে নিজে বাঁচি সমাজকে বাঁচানোর চেষ্টা করি।

Posted on

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।
প্রিয় ভাই, আর কয়দিন পরেই পালিত হবে শবে বরাত। সে দিন সরকারী ছুটি ঘোষণা করা হবে। হালুয়া-রুটি খাওয়ার ধুম পড়ে যাবে। অনুষ্ঠিত হবে মিলাদ মাহফিল ও জিকিরের মজলিস। সেই সাথে মুর্হুমূহু আতশবাজিতে কেঁপে কেঁপে উঠবে শবে বরাতের রাতের আকাশ। আরও দেখা যাবে মসজিদের আঙ্গিনাতে যাদের পদ যুগল পড়ত না সে রাতে তারাই আতর-সুগন্ধি মেখে টুপি-পাঞ্জাবী পরে মসজিদের প্রথম কাতারে মুসল্লী সেজে অবস্থান করছে আর বিশেষ কিছু এবাদত-বন্দেগী করে মনে করবে জীবনের সব গুনাহ মাফ হয়ে গেছে। Read the rest of this entry »

Advertisements

নির্বাচিত ৫০টি হাদীস

Posted on

শিরোনাম: নির্বাচিত ৫০টি হাদীস
ভাষা: বাংলা
অনুবাদক : আব্দুননূর বিন আব্দুল জাব্বার
প্রকাশনায় : ইসলাম প্রচার ব্যুরো, রাবওয়াহ, রিয়াদ
সংক্ষিপ্ত বর্ণনা: নির্বাচিত ৫০টি হাদীস: আকীদাহ্‌, শরী‘আহ ও আখলাক বিষয়ক পঞ্চাশটি হাদীস এখানে একত্রিত করা হয়েছে, যেগুলো হেফয করার জন্য অত্যন্ত উপযোগী। প্রতিটি হাদীসের সাথে বর্ণনাকারী সাহাবীর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি ও মূল্যবান শিক্ষণীয় বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে।
গ্রন্থটি মূলত ১৪৩৩ হিজরীতে অনুষ্ঠিতব্য সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রবাসীদের মাঝে প্রথম হাদীস হিফ্‌য প্রতিযোগিতার জন্য সংকলিত।

আপনি কি মুহাম্মাদ (সাঃ) কে চেনেন?

Posted on

নবী (সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) র বৈশিষ্টঃ

  •  তিনি আদম সন্তানের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ ও তাদের নেতা। রাসূলুল্লাহ (ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, “আমার পালনকর্তার নিকট আদম-সন্তানদের মধ্যে আমিই সর্বাধিক সম্মানিত, এতে অহংকারের কিছু নেই। (তিরমিযী)
  • তিনি নবী-রাসূলদের মধ্যে সর্বশেষ এবং সর্বশ্রেষ্ঠ। নবী (ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, “কিয়ামতের দিন আমিই হব নবীগণের ইমাম (নেতা), তাঁদের মুখপত্র এবং তাঁদের সুপারিশ কারী, এতে কোন অহংকার নেই। (বুখারী ও মুসলিম) Read the rest of this entry »

তাবীজ-কবজ, রিং, বালা, সুতা ইত্যাদী ব্যবহার

Posted on

বর্তমানে অনেক মুসলমান রোগ-ব্যাধি ও অন্যান্য সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার আশায় তাবীজ-কবজ, রিং, বালা, সুতা ইত্যাদী ব্যবহার করে থাকে। কুরআন ও সহীহ হাদীছের আলোকে উপরোক্ত জিনিষগুলো ব্যবহার করা সম্পূর্ণ হারাম। নিন্মে রেফারেন্স সহ এজাতীয় জিনিষগুলো ব্যবহার করা হারাম হওয়ার দলীল সমূহ পেশ করা হল:
1) নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ Read the rest of this entry »

আওলীয়া গনের কিরামতি

Posted on

কারামতে আওলীয়ার ব্যাপারে আহ্‌লুস্‌ সুন্নাত ওয়াল জামাআতের বিশ্বাসঃ
আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের আকীদার অন্যতম অংশ হচ্ছে আউলীয়াদের কারামত এবং আল্লাহ তা’আলা তাদের হাতে অলৌকিক ও সাধারণ অভ্যাসের বিপরীত যে সমস্ত ঘটনা প্রকাশ করেন তাতে বিশ্বাস করা। তবে অলী হওয়ার জন্য কারামত প্রকাশিত হওয়া জরুরী নয়। আউলীয়াদের কারামত সত্য। আল্লাহ তাআ’লা তাদের হাতে অলৌকিক ও সাধারণ নিয়মের বিপরীত এমন ঘটনা প্রকাশ করে থাকেন যাতে তাদের কোন হাত নেই। তবে কারামত চ্যালেঞ্জ আকারে প্রকাশিত হয় না; বরং আল্লাহই তাদের হাতে কারামত প্রকাশ করেন। এই উম্মাতের মধ্যে প্রচুর পরিমাণ ও বড় বড় কারামত প্রকাশিত হয়েছে। কারণ আমাদের নবীর মুজিযাগুলো হচ্ছে বড় বড় এবং আল্লাহ্‌ তাআলার নিকট তাঁর সম্মানও অনেক বড়।প্রত্যেক পরহেজগার মু’মিনই আল্লাহর অলী। Read the rest of this entry »

মিরাজের সঠিক ঘটনা ও তার শিক্ষা

Posted on

মিরাজের ঘটনা কুরআন ও সহীহ হাদীছের মাধ্যমে প্রমাণিত। আল্লাহ তাআলা বলেনঃ
)سُبْحَانَ الَّذِي أَسْرَى بِعَبْدِهِ لَيْلًا مِنْ الْمَسْجِدِ الْحَرَامِ إِلَى الْمَسْجِدِ الْأَقْصَى الَّذِي بَارَكْنَا حَوْلَهُ لِنُرِيَهُ مِنْ آيَاتِنَا إِنَّه هُوَ السَّمِيعُ الْبَصِيرُ(
“পবিত্র ও মহিমাময় তিনি যিনি তাঁর বান্দাকে রজনীর কিয়দাংশে ভ্রমণ করিয়েছিলেন মাসজিদুল হারাম হতে মসজিদুল আকসা পর্যন্ত। যার পরিবেশকে আমি করেছিলাম বরকতময়। তাঁকে আমার নিদর্শন দেখাবার জন্যে। নিশ্চয় তিনি সর্বশ্রোত, সর্বদ্রষ্টা। (সূরা বাণী ইস্রাঈলঃ ১)
মেরাজ কখন সংঘটিত হয়েছিল?
মেরাজ কখন হয়েছিল সে ব্যাপারে সুস্পষ্ট কোন দলীল পাওয়া যায় না। সুতরাং ২৭ রজব মেরাজ হওয়ার অনুমান ঠিক নয়। তবে বিশুদ্ধ কথা হল: তায়েফ থেকে ফেরত আসার পর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামএর মিরাজের ঘটনা সংঘটিত হয়েছিল। (দেখুন: রাহীকুল মাখতুম) Read the rest of this entry »

আকীকা র ক্ষেত্রে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সুন্নাত

Posted on

মুআত্তা ইমাম মালেক (রঃ)কে আকীকাহ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বললেনঃ আমি আকীকাহ শব্দটি পছন্দ করি না। কারণ আকীকাহ শব্দটি আরবী عق শব্দ হতে গৃহীত। আক্কা অর্থ নাফরমানী করা অবাধ্য হওয়া। পিতা-মাতার অবাধ্য হওয়াকে আরবীতে عقوق الوالدين উকুকুল ওয়ালিদাইন বলা হয়। তাই ইমাম মালেক (রঃ) সন্তান জন্ম উপলক্ষে এবাদত হিসেবে যেই পশু যবেহ করা হয় তাকে আকীকাহ নামে নামকরণ করাকে অপছন্দ করেছেন। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ Read the rest of this entry »